মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

হাটবাজার

পুলেরহাট

আরবপুর ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডে পুলেরহাটের অবস্থান। যশোর বেনাপোল মহাসড়কের চাঁচড়া চেকপোস্ট পার হয়ে কিছুটা সামনে আগালেই পুলেরহাট বাজার। এ বাজারে সপ্তাহে দুদিন হাট বসে। রবিবার এবং  বৃহস্পতিবার হাটবার। পুলেরহাট এ অঞ্চলের অন্যতম বড় ধানের হাট। আরবপুর,চাঁচড়া ইউনিয়ন সহ পাশ্ববর্তী এলাকা থেকে কৃষকরা তাদের উতপাদিত ধান বিক্রির জন্য পুলেরহাটে নিয়ে আসেন। এখানে বড় বড় ধানের আড়ত আছে। হাটবারে এখানে আসলে চোখে পড়বে সারি সারি ভ্যান কিম্বা গরুরর গাড়ী বোঝাই ধানের বস্তা। ধান ছাড়াও হাটবারে পাট , ডাল, তেলবীজ সহ নানাবিধ কৃষি পণ্য বিক্রি হয়। যশোর জেলার মধ্যে গরু কিম্বা খাসীর মাংসের জন্য পুলেরহাট প্রসিদ্ধ। সাথে শাক সবজি আর মাছ তো থাকেই।

 

ভেকুটিয়ার হাট

আরবপুর ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ড ভেকুটিয়ায় হাটটি অবস্থিত। ধর্মতলা মোড় থেকে সোজা ২ কি:মি: সামনে আসলেই পড়বে ভেকুটিয়া বাজার। স্বাধীনতার পূর্বে এই বাজারটি খেয়াঘাট মোড়ে বসলেও স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে এটি ভেকুটিয়া বকুলতলা বাজারে বসছে। ভেকুটিয়ার হাট সপ্তাহে তিনদিন। শুক্র, সোম এবং বুধ। তবে শুক্রবারেই বেশী জমজমাট হয়। ভেকুটিয়া শেখপাড়ার ঔল এবং কচু শুধু যশোর জেলায় নয় রাজধানী ঢাকার অনেক বাজারে  পাওয়া যায়। স্থানীয় কৃষকদের উতপাদিত শাক শবজি মাছ মুরগী এই বাজারে হাটবারে পাওয়া যায়। তবে এখানে গরু বা খাসী মাংস বিক্রি হয় না।

 

বালিয়া ভেকুটিয়ার হাট

আরবপুর ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ড বালিয়া ভেকুটিয়া গ্রামে হাটটি অবস্থিত। বালিয়া ভেকুটিয়া বাজার ভেকুটিয়া বাজার থেকে কিলো দেড়েক সামনে অবস্থিত। আরবপুর ইউনিয়ন ও দেয়াড়া ইউনিয়নের জনগণ এই বাজারে কেনা বেচা করে থাকেন। এখানে সপ্তাহে তিনদিন হাট বসে। রবি, মংগল এবং বৃহস্পতিবার হাটবার। এই হাটটির আয়তন ভেকুটিয়া হাটের চাইতে বেশী বিধায়  লোকসমাগম বেশী হয়।

বাজার

১। ধর্মতলা বৌবাজার

২। পতেংগালী বাজার।

৩। বালিয়া ভেকুটিয়া কলোনী বাজার

৪। মালঞ্চী বাজার।

৫। ধোপাখোলা বাজার।

এ সব বাজারে প্রতিদিন শাক সবজি মাছ তরকারি পাওয়া যায়।


Share with :

Facebook Twitter